সময়টা যখন বর্ষা,নিজের মধ্যে থাকা দ্বিধা-দ্বন্দ গুলোকে ইকটু মন থেকে দূরে সরিয়ে ঘুরে আসতে পারেন সাজেক ভ্যালি থেকে।।
সাজেকের ভোরটা মেঘের রাজ্যে বাসবাসের মতই মনে হবে।মেঘ যেন পুরো সাজেক ভ্যালিটাকে মেঘের উপর ভাসিয়ে রেখেছে।ম্যাচাং গুলোর জানালা দিয়ে হাল্কা শীতল বাতাস শরীরকে স্পর্শ করে যাওয়া এ এক অসম্ভব ভালো লাগার অনুভূতি।। কখনো মেঘ আবার হঠাৎ ঝিরঝির বৃষ্টি।সব মিলিয়ে খুব খারাপ সময় কাটবে না,এতটুকু আমি গ্যারান্টি দিয়ে বলতে পারি
খাওয়া & থাকার ব্যবস্হা ও খারাপ না।
যেভাবে যাবেনঃ
# ঢাকা (সায়দাবাদ/গাবতলি/ফকিরাপুল)- খাগড়াছড়ি রাতের বাসে উঠে পড়ুন (ভাড়া-৫২০টাকা)
# খাগড়াছড়ি থেকে আপনি তিন মাধ্যমে সাজেক পৌছাতে পারবেন । চান্দের গাড়ী,সিএনজি এবং মটরসাইকেলে ।
# খাগড়াছড়ি শহর বা দীঘিনালা উপজেলা শহর থেকে জীপগাড়ি (লোকাল নাম চাঁন্দের গাড়ি) রিজার্ভ নিলে ভাড়া নিবে পুরাতন চান্দের গাড়ী ৫০০০-৬০০০ টাকা আর নতুন মাহিন্দ্রাগুলো ৭০০০-৮০০০ টাকা।
# এই টাকার মধ্যে আপনি যাবেন তারপর রাত কাটাবেন গাড়ী আবার আপনাকে নিয়ে আসবে।এক গাড়িতে গাড়ীর সাইজ অনুযায়ী দশ থেকে ১৫ জন বসতে পারবেন ।
খাবার & থাকার ব্যবস্হাঃ
# ক্যাটেজ পাবেন ২০০০-২৫০০ টাকার মধ্যে; (৪/৫ জন থাকতে পারবেন),অতঃপর ক্যাটেজে রাত কাটানোর অনুভূতিটা ব্যাপক।
# খাবার প্রতি বেলা জনপ্রতি ১০০-১৫০ টাকার মধ্যে হয়ে যাবে।
সতর্কতাঃ
# বৃষ্টির দিন বলে কথা,ইক্টু সতর্ক থাকবেন,বৃষ্টি থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য ছাতা ও যাবতীয় সরঞ্জাম সাথে নিয়ে নেয়া ভালো।
# যেখানে সেখানে ময়লা ফেলবেন না।
# আর্মিদের ইন্সটাকশন মেনে চলুন
💜ধন্যবাদ💜

Post Copied From:Rifat Faruqe Ove>Travelers of Bangladesh (ToB)