একদিনের ট্যুর এ আপনি ঘুরে আসতে পারেন নবাবগঞ্জ এর সুন্দর কিছু জায়গা ও দোহার এর মৈনট ঘাট।
আপনাকে ছবির জায়গা গুলো ঘুরে দেখতে হলে ঢাকা থেকে সকাল ৭ টা থেকে ৮ টার ভিতর বের হতে হবে তাহলে আপনি খুব সুন্দর ভাবে রিলাক্স এ জায়গা গুলো ঘুরে আসতে পারবেন।
আমি আর আমার বন্ধু আরিফ গতকাল জায়গা গুলো ঘুরে আসলাম।

🌱🌱নবাবগঞ্জ ও দোহার এর যে জায়গা গুলো ঘুরে দেখেছি আমরাঃ
-জর্জ বাড়ী
-উকিল বাড়ী
-কোকিল প্যারি জমিদার বাড়ী
-কলাকোপা আনসার ক্যাম্প এর ভিতরে অনেক গুলো পূরোনো বাড়ী
-ইচ্ছামতি নদী
– আদনান প্যালেস
-খেলালামদার বাড়ী
-মৈনট ঘাট
তবে জর্জ বাড়ী আমরা ভিতরে ঘুরে দেখতে পারিনি ছবিটি বাহির থেকে তোলা। এই বাড়ীটি সব সময় ঘুরে দেখার জন্য খোলা থাকে না এটা ব্যক্তি মালিকানাধীন যখন এই বাড়ীর মালিক আসে তখন কপাল ভালো থাকলে অনুমতি নিয়ে ঘুরে যায় যতটুকু জানতে পেরেছি।
আর কলাকোপা আনসার ক্যাম্প এর ভিতরে যে পূরোনো বাড়ী গুলো রয়েছে সে গুলো আনসার ক্যাম্প থেকে অনুমতি নিয়ে ঘুরতে হবে আমাদের কপাল ভালো ছিল তাই ঘুরতে পেরেছি তবে অনেক সময় নাকি নিষেধ থাকে। আপনারা যারা যাবেন ঘুরতে এসেছেন বুঝিয়ে বলবেন সমস্যা হবে না।
আপনাদের বুঝার সুবিধার জন্য প্রত্যেকটা ছবির স্থান এর নাম পোস্ট এ লিখে দিয়েছে।

🌲🌲যেভাবে যাবেন ও জায়গা গুলো ঘুরে দেখবেন ও জনপ্রতি খরচঃ
ঢাকার গুলিস্তান এর ফুলবাড়িয়া মার্কেট এর সামনে থেকে নবাবগঞ্জ ও দোহার এর বাস ছাড়ে এন মল্লিক ও যমুনা পরিবহন। আপনরা এন মল্লিক বাস এ যাবেন এটা সরাসরি যার রাস্তায় আর কোন যাএী উঠায় না তাই যেতে সময় ও কম লাগবে। আপনারা সকাল ৭ টা থেকে ৮ টার বাস এ যাওয়ার চেষ্টা করবেন। এই বাস গুলো বান্দুরা যায় আপনারা বলবেন জর্জ বাড়ী যাবেন নবাবগঞ্জ এর ওনারা নামিয়ে দিবে সময় লাগবে। ভাড়া ৭০ টাকা। জর্জ বাড়ীর সামনে নামিয়ে দিবে জর্জ বাড়ী দেখে এর পাশেই উকিল বাড়ী ঘুরে দেখবেন। এই বাড়ীটিতে ঢুকতে ২০ টা প্রবেশ টিকেট লাগবে। এই বাড়ীটিতে আরোও রয়েছে রয়েছে ফুলের বাগান ও পুকুর। উকিল বাড়ী ঘুরে দেখে পাশে ই রয়েছে কোকিল প্যারি জমিদারবাড়ি ওখান এ কিছু সময় কাটিয়ে পাশেই রয়েছে অানসার ক্যাম্প। অানসার ক্যাম্প অনুমতি নিয়ে আনসার ক্যাম্প এর পুরোনো বাড়ী গুলো ঘুরে দেখবেন। এই জায়গা গুলো ঘুরে দেখে রাস্তা ঘরে এগুলোই দেখবেন ইচ্ছামতি নদী এখানে রয়েছে সুন্দর একটি ঘাট কিছু সময় বসে নদীর পাড় ধরে একটু সামনে হাঁটলেই পাবেন আদনান প্যালেস। ৩০ টাকা দিয়ে টিকেট কিনে জায়গা টি ঘুরে দেখবেন। জায়গাটা মোটামুটি সুন্দর।এখানে আদনান প্যালেস ও রয়েছে ছোট সাজানো গোছানো পার্ক। আর সব চাইতে ভালো লাগবে নদীর পাড় এ বসে নদীর সৌন্দর্য দেখতে এখান থেকে। এখান এ ঘুরে চলে যাবেন খেলালামদার বাড়ী হেঁটেই যাওয়া যায় ৫ মিনিট লাগবে।
এই জায়গা গুলো একটি থেকে আর একটি কাছাকাছি যদি চিনতে সমস্যা হয় স্থানীয় মানুষের সাহায্য নিবেন। ইনশাআল্লাহ সমস্যা হবে না।
এখানে কিছু সময় ঘুরে চলে যাবেন জর্জ বাড়ীর সামনে অটোতে অথবা মেইন রাস্তায় গেলে ই বাস পাবেন একটু দাড়ালে এখান থেকে দোহার এর মৈনট যাবেন ভাড়া নিবে ২৫-৩০ টাকা।
মৈনট ঘাট এ গিয়ে ভাজা ইলিশ দিয়ে দুপুরের খাবার খেয়ে কিছু বিকেল টা মৈনট ঘাট ঘুরে দেখুন পদ্মা নদীর সৌন্দর্য আপনার ভালো লাগতেই হবে।
এখান থেকে যমুনা পরিবহন সহ আরো কিছু পরিবহন এর বাস ঢাকাতে আসে ওখান থকে শেষ বাস ছাড়ে ঢাকার সন্ধ্যা ৬ টার। ভাড়া নিবে ৯০ টাকা।

🍀🍀আপনাদের এই ট্যুর এ খরচ হবেঃ
-যাওয়া আসা বাস ভাড়া ৭০+৯০=১৬০ টাকা
-উকিল বাড়ীর প্রবেশ মূল্য ২০
-আদনান প্যালেস এর প্রবেশ মূল্য ৩০ টাকা
-জর্জ বাড়ী নবাবগঞ্জ থেকে মৈনট ঘাট দোহার যেতে বাস ভাড়া ২৫ টাকা
এখানে ২৩৫ টাকা খরচ
সাথে সকাল এর নাস্তা ও দুপুরের খাবার সহ আপনাদের আরও ২০০ টাকা টাকা খরচ হবে।
মোট খরচ =৪৩৫ টাকা। আপনারা ৪৫০ থেকে ৫০০ টাকায় খুব সহজেই এই সুন্দর জায়গা গুলো থেকে ঘুরে আসতে পারবেন।

আমাদের ৫৫০ টাকা খরচ হয়েছে জনপ্রতি কারন আমরা ভরপুর খাওয়া দাওয়া করেছিলাম টুকটাক তাই☺

Source:  Khairul Islam Rana‎<Travelers of Bangladesh (ToB)